অর্থনীতি

নির্বাচনের আগে পুঁজিবাজার চাঙ্গা রাখতে নানা উদ্যোগ

নির্বাচনের আগে দেশের শেয়ারবাজার চাঙ্গা রাখতে বহুমুখী উদ্যোগ নিয়েছে সরকার। এর মধ্যে টাকার প্রবাহ বাড়ানো, ভালো কোম্পানিগুলোকে পুঁজিবাজারে নিয়ে আসা, বিদেশি যেসব কোম্পানি দেশে ভালো ব্যবসা করছে তাদের মূলধনের একটি অংশ বাজারে ছাড়া। পুঁজিবাজারে প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের অংশগ্রহণ বাড়ানো, তাদের মূলধনের জোগান বাড়াতে তহবিলের উৎস বহুমুখীকরণ। এ ছাড়া ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলোর শেয়ার ধারণের সক্ষমতা আরও বাড়াতে চায় সরকার।

এদিকে চীনা কনসোর্টিয়ামের অংশগ্রহণ প্রবাসী বিনিয়োগকারীদের কাছে দেশের পুঁজিবাজার নতুন করে উপস্থিত হচ্ছে। পুঁজিবাজারে প্রবাসী বাংলাদেশিদের অংশগ্রহণ ক্রমেই বাড়ছে। পুঁজিবাজারের তালিকাভুক্ত বেশিরভাগ কোম্পানির শেয়ারের দর হাতের নাগালে রয়েছে, যে কারণে প্রবাসীদের এই মার্কেটের প্রতি আগ্রহ বেড়েছে বলে মনে করছেন বাজার সংশ্লিষ্টরা। তবে চীন কৌশলগত বিনিয়োগকারী হওয়ায় প্রবাসীদের বড় বিনিয়োগের সম্ভাবনা রয়েছে বলে মনে করছেন তারা।

পুঁজিবাজারের তারল্য জোগান বাড়াতে দুই হাজার কোটি টাকার বন্ড ছেড়ে তার কমপক্ষে ৭৫ শতাংশ পুঁজিবাজারে বিনিয়োগ করতে ইনভেস্টমেন্ট কর্পোরেশন অব বাংলাদেশ (আইসিবি) কে ২সিসি ক্ষমতাবলে বাধ্যতামূলক নির্দেশ দিয়েছে বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি)। পুঁজিবাজারে নিয়ন্ত্রক সংস্থার এ সিদ্ধান্ত তারল্য বাড়াতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞ ও বাজার সংশ্লিষ্টরা। এতে কিছুটা হলেও বাজারের ওপর বিনিয়োগকারীদের আস্থা বাড়বে বলে মনে করছেন তারা। রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন প্রতিষ্ঠান আইসিবিকে গত ১৭ জুলাই দুই হাজার কোটি টাকার বন্ড ছাড়ার অনুমোদন দেয় পুঁজিবাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি)।

একাত্তর ট্রিবিউন/ এআর