বাংলাদেশ

ব্রাহ্মণবাড়িয়া-অশ্লীল ভিডিও ধারণ করে কিশোরীকে ব্ল্যাকমেইলের চেষ্টা- আটক ৩

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধিঃ
ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় অশ্লীল ভিডিও ধারণ করে ব্ল্যাক মেইলের সময় তিন যুবককে আটক করেছে পুলিশ। সোমবার বিকেলে জেলা শহরের দাতিয়ারা এলাকার একটি বাড়ি থেকে তাদের আটক করা হয়। 
আটককৃতরা হলেন, দাতিয়ারা এলাকার সেলিম মিয়ার ছেলে হৃদয়(২৬), একই এলাকার শামসুজ্জামানের ছেলে বাপ্পী(২৪) ও দক্ষিণ মৌড়াইল এলাকার জাহের মিয়ার ছেলে জাহাঙ্গীর(৩৮)। এই ঘটনায় পলাতক রয়েছে বাবুল নামের একজন। 
সূত্রে জানা যায়, সোমবার সকালে সদর উপজেলার বুধল গ্রামের ১৬ বছরের এক কিশোরী তার স্কুলের ছেলে বন্ধুকে নিয়ে জেলা শহরের ফারুকী পার্কে বেড়াতে আসে। পার্কে দুই বন্ধু আড্ডা দেওয়ার সময় বাবুল নামের একব্যক্তি তাদের কাছে আসে। বাবুল বিভিন্ন কথায় তাদের সাথে খুব আন্তরিকতা দেখায়। ওই কিশোরী ও তার বন্ধুকে বাবুল পার্কের পাশে দাতিয়ারায় তার বাড়িতে বেড়িয়ে যেতে বলে। নানান কৌশলের কারণে ওই কিশোরী ও তার বন্ধু বাবুল বাড়িতে যেতে রাজি হয়। তারা দাতিয়ারায় গিয়ে বাড়িতে প্রবেশ করার পরই বাবুল ক্লাকসিবল গেইটে তালা লাগিয়ে ফেলে। পরে ওই কিশোরী ও তার বন্ধুকে একটি রুমে ঢুকিয়ে আটক করে ফেলে বাবুল। ফোন করে বাবুল আরো তিন যুবককে নিয়ে আসে। তিন যুবক সহ বাবুল রুমে ঢুকে ওই কিশোরীকে বিবস্ত্র করে জোরপূর্বক বিভিন্ন ভাবে মোবাইলে অশ্লীল ভিডিও তৈরি করে। 
ভিডিও তৈরি করার পর ওই কিশোরীর বন্ধুকে যুবকরা বলে ১লক্ষ টাকা দিতে হবে, নাহলে ভিডিওটি প্রকাশ করে দেওয়া হবে। তাদের কথা মতো ওই কিশোরীর বন্ধু তার এক নিকটাত্মীয়কে ফোন দিয়ে কৌশলে বলে ১লক্ষ টাকা নিয়ে আসতে। বিষয়টি আচ করতে পেরে, ওই নিকটাত্মীয় পুলিশকে টাকার বিষয়টি অবহিত করে। পুলিশ জানতে পেরে দাতিয়ারার একটি বাড়িতে অভিযান চালিয়ে ওই কিশোরী ও তার বন্ধুকে উদ্ধার সহ তিন যুবককে আটক করে। এসময় পালিয়ে যায় বাবুল মিয়া। 

সদর মডেল থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) আব্দুল মোত্তালেব দৈনিক মানচিত্র জানান, অশ্লীল ভিডিওসহ মোবাইল ফোনটি জব্দ করা হয়েছে। পলাতক বাবুল কে আটক করতে অভিযান অব্যাহত আছে। এই ঘটনায় মামলা প্রক্রিয়াধীন আছে।