বাংলাদেশ

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় মেডিকেল রিপ্রেজেন্টেটিভ সদর হাসপাতালের নার্সকে ছুরিকাঘাত- শেষে আত্মহত্যার চেষ্টা

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি: পরিবারিকভাবে মেনে না নেওয়ায় ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় প্রেমিক যুগল ছুরিকাঘাতে আত্মহত্যার চেষ্টা করেছে বলে অভিযোগ উঠেছে।

শুক্রবার (০৩ মে) রাত ১২ টায় জেলা শহরের ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর হাপাতালের নার্সদের ডরমেটরিতে এ ঘটনা ঘটে । পরেরদিন শনিবার সকালের পর থেকে বিষয়টি জানা জানি হয়।। একজন হলেন নারায়নপুর ইউনিয়নের বেলাব উপজেলার নরসিংদী জেলার মৃত রায়চরন সূত্রধরের মেয়ে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর হাসপাতালের সিনিয়র নার্স স্টাফ সুইটি সূত্রধর(২৬) ও অপরজন অরুয়াইল ইউনিয়নের সরাইল উপজেলার ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার মোঃ কামাল হোসেন চৌধুরীর ছেলে, এডরুক ফার্মাসিউটিক্যালস মেডিকেল রিপ্রেজেন্টেটিভ তানভীর হোসেন চৌধুরী সজীব(২৮)। 

সদর হাসপাতাল সূত্রে জানা যায়, নার্স সুইটি ও সজীব দীর্ঘদিন ধরে একে অপরকে পছন্দ করে। তাদের পছন্দের বিষয়টি তাদের দুইজনের পরিবারকে জানায়। কিন্তু তাদের পরিবার দুই জনকে মেনে নিতে রাজি হয়নি। এক পর্যায়ে শুক্রবার রাতে সুইটি সজীবকে ফোন করে তার ডরমিটরিতে আসতে বলে। সজীব আসলে দুইজন সিদ্ধান্ত নেয় আত্মহত্যা করার। প্রথমে ধারালো ছুরি দিয়ে সজীব সুুইটিকে ছুরিকাঘাত করে। পরে সে নিজেই ছুরি দিয়ে তার গলায় আঘাত করে লুটিয়ে পড়ে। পরে দুইজনের আত্ম চিৎকারে অন্য নার্সরা এসে দুইজনকে উদ্ধার করে জেলা সদর হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়। এ ঘটনা খবর পেয়ে হাসপাতালের তত্বাবধায়ক ডা. শওকত হোসেন সহ অন্যরা এসে পরিদর্শন করে। তাদের অবস্থা আশংকজনক হলে কত্যর্বরত চিকিৎসক ডাঃ শাখাওয়াত হোসেন শামীম ঢাকা মেডিকেলে প্রেরণ করে।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর থানার উপ- পরিদর্শক (এসআই) সুমন চন্দ নাথ জানান, প্রেমিক যুগলের আত্মহত্যার খবর পেয়ে আমরা হাসপাতালে এসেছি। বিষয়টি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে। এ দিকে সদর হাসপাতালের নার্সদের ডরমিটরিতে এ ধরনের ঘটনায় ডরমিটরির নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিয়ে জনমনে চাঞ্চল্য সৃষ্টি হয়েছে । তবে নার্সিং ডরমিটরির দ্বিতীয় তলার ১০৭নং কক্ষে এই ঘটনা ঘটেছে কিন্তু ডরমিটরির কেউ এই বিষয়ে কোন কিছু বলতে রাজী হয়নি । আমি আশা রাখি নার্সিং ডরমিটরির এই ঘটনায় কেউ জড়িত আছে কিনা তা খতিয়ে দেখা হবে, কেউ বিচারের বাহিরে থাকবে না । 

হাসপাতালের তত্বাবধায়ক ডাঃ শওকত হোসেন বলেন, বিষয়টি তদন্তের জন্য ডাঃ শেখ আবু জাফরকে সভাপতি, ডাঃ রানা নুরুল সামসকে সদস্য সচিব, ডাঃ ফাইজুর রহমান ফায়েজ ও সদর হাসপাতালের সেবা তত্ত্বাবধায়ক রবি দত্তকে সদস্য করে চার সদস্য তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে ।