বাংলাদেশ

চাচাতো ভাইয়ের ধর্ষণের শিকার চাচাতো বোন

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ বিজয়নগরে ১৫ বছর বয়সী এক প্রবাসী চাচতো বোনকে ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগ উঠেছে প্রতিবেশী এক যুবকের বিরুদ্ধে। মঙ্গলবার রাত ৮.০০ ঘঃ আয়েশা(১৫) বাথরুমে যাওয়ার পর এ ঘটনা ঘটে। এসময় প্রতিবেশী অভিযুক্ত যুবক যুবায়ের(২৫) তার মুখে উড়না বেঁধে হাত ধরে টেনে তার ঘরের পিছনে নিয়ে জোরপূর্বক ধর্ষণ করেন। তখন আয়েশার চিৎকারে ছুটে গিয়ে মেয়েটিকে রক্তাক্ত অবস্থায় উদ্ধার করেন শফিক মিয়া (চাচা)। 

মেয়ের চাচাতো ভাই খাইরুল ইসলাম ও এলাকাবাসীর সূত্রে জানা যায়, গত (১২ জুন) মঙ্গলবার রাত ৮.০০ ঘঃ বাথরুমে যাওয়ার জন্য ঘর থেকে বের হয় বিজয়নগর উপজেলার হরষপুর ইউনিয়নের মোল্লাবাড়ি, বাইগদা গ্রামের রফু মিয়ার বড় মেয়ে আয়েশা(১৫)। সে সময় আগে থেকেই ওৎপেতে থাকা ওই এলাকার আব্দুল হকের পুত্র যুবায়ের(২৫) ওই জনৈক মেয়েকে জোর করে মুখে উড়না বেঁধে স্থানীয় একটি নির্জন স্থানে নিয়ে যায়। যুবায়ের কিশোরীকে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে। পরে মেয়ে বাথরুম থেকে না আসায় বাবা চারিদিকে খোঁজাখুঁজির এক পর্যায়ে স্থানীয় একটি নির্জনস্থানে গাছের সাথে অচেতন অবস্থায় দেখতে পেয়ে তাকে উদ্ধার করেন। এ ঘটনার পর থেকে সুষ্ঠু সমাধান এবং উপযুক্ত বিচার করে দেয়ার নামে ঘটনাটিকে ধামাচাপা দেয়ার চেষ্টা করে স্থানীয় গ্রাম্য মোড়লরা। এ ঘটনায় আহত মেয়ের মা মারুফা ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর হাসপাতলে চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে জরুরী বিভাগে নিয়ে যায়। মেয়েটি এখন সেখানে চিকিৎসাধীন আছে।

আয়েশার চাচা বাচ্চু মিয়া বলেন- আমার ভাজতি আয়েশা জর্ডান প্রবাসী, সে মে মাসের প্রথমে দেশে ছুটিতে আসার পর যুবায়ের প্রেমের প্রস্তাব দেয়, বিভিন্ন সময় মেয়েকে উত্তপ্ত করতো । যুবায়ের আমার ভাজতিকে ধর্ষণ করার আগেও তার চাচী ও ভাগণীর সাথে শারীরিক সম্পর্ক ছিল ।