বাংলাদেশ

ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেনারেল হাসপাতাল পরিদর্শন করেন জেলা প্রশাসক হায়াত-উদ-দৌলা খান

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ডেঙ্গু আক্রান্ত ৪০জন রোগী রয়েছে বলে জানিয়েছেন জেলা প্রশাসক হায়াত-উদ-দৌলা খান। তিনি বৃহস্পতিবার দুপুরে ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেনারেল হাসপাতাল পরিদর্শন শেষে উপস্থিত সাংবাদিকদের একথা জানান।
জেলা প্রশাসক হায়াত-উদ-দৌলা খান হাসপাতাল পরিদর্শনকালে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ডেঙ্গু আক্রান্ত ১৫ জন রোগীর সাথে কথা বলেন ও তাদের শারীরিক অবস্থার খোঁজ খবর নেন। তিনি রোগীদেরকে আতঙ্কিত না হতে অভয় দেন।

সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে জেলা প্রশাসক হায়াত-উদ-দৌলা খান বলেন, ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলায় মোট ৪০জন ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগী রয়েছে। তাদের মধ্যে অনেকেই শংকা মুক্ত। তিনি বলেন, সরকার ডেঙ্গুর বিরুদ্ধে নানামুখী পদক্ষেপ গ্রহণ করেছেন। প্রচারণার পাশাপাশি ডেঙ্গু রোগীদের শারিরীক পরীক্ষার ক্ষেত্রে সরকার হাসপাতাল গুলোকে ফি-নির্ধারন করে দিয়েছেন। এর পরও কোনো কোনো বে-সরকারী হাসপাতাল রক্ত পরীক্ষার মূল্য বেশি রাখছে। আমরা ভ্রাম্যমান আদালতের মাধ্যমে তাদেরকে জরিমানা করছি। পাশাপাশি সচেতন করছি। কেউ যেনো ডেঙ্গু রোগীদের কাছ থেকে বাড়তি সুবিধা আদায় না করতে পারে এ ব্যাপারে জেলা প্রশাসন সজাগ রয়েছে। এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, জ্বর হলেই ডেঙ্গু ভাবা ঠিক নয়, এ ব্যাপারে আতংকিত না হয়ে রক্ত পরীক্ষা করে চিকিৎসকের পরামর্শ নেওয়ার কথা বলেন তিনি।

এ সময় ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেনারেল হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডাঃ শওকত হোসেন বলেন, ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ডেঙ্গু রোগীর চিকিৎসা চলছে। হাসপাতালে ভর্তি সবাই শংকা মুক্ত। গতকাল বৃহস্পতিবার একজনের অবস্থা খারাপ হওয়ায় তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্যে ঢাকায় প্রেরণ করা হয়েছে। তিনি ডেঙ্গুর বিরুদ্ধে সকলকে সচেতন হওয়ার আহবান জানান।

এসময় জেলা প্রশাসকের সাথে স্থানীয় সরকার বিভাগ, ব্রাহ্মণবাড়িয়ার উপ-পরিচালক শাহ্ওয়াজ, ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা পঙ্কজ বড়ূয়া, হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডাঃ শওকত হোসেনসহ প্রশাসনের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে জেলা প্রশাসক হায়াত-উদ-দৌলা খান ব্রাহ্মণবাড়িয়াকে মশকমুক্ত রাখার জন্য জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে শহরে সচেতনতা মূলক লিফলেট বিতরনে নেতৃত্ব দেন। তিনি প্রেসক্লাবের সামনে, হাসপাতাল রোড ও কুমারশীল মোড় এলাকায় জনগনের মধ্যে লিফলেট বিতরণ করেন।