বাংলাদেশ

ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযান বিজয়নগরে অবৈধভাবে কাভার্ডভ্যানে করে সিএনজি গ্যাস বিক্রির দায়ে ২ জনের কারাদন্ড

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বিজয়নগরে কাভার্ড ভ্যানে ঝালাই করে অবৈধভাবে সিলিন্ডার গ্যাস বসিয়ে সিএনজিচালিত অটোরিকসায় এসব গ্যাস বিক্রির দায়ে শহিদুল ইসলাম-(৩৫) এবং আবুল বাসার-(৪২) নামে দুই ব্যক্তিকে কারাদণ্ড প্রদান করেছে ভ্রাম্যমান আদালত। এ সময় কাভার্ড ভ্যান থেকে গ্যাস ভর্তি ১৪৮টি সিলিন্ডার উদ্ধার করা হয়।
গত শুক্রবার বিকেলে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট মেহের নিগার উপজেলার চম্পকনগর বাজারে ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করে তাদেরকে ১ মাস করে কারাদণ্ড প্রদান করেন।
দণ্ডপ্রাপ্ত শহিদুল ইসলামের বাড়ি লক্ষীপুর জেলার কমলনগর এলাকায় এবং আবুল বাশারের বাড়ি বিজয়নগর উপজেলার পত্তন ইউনিয়নের কালারটেক গ্রামে।
খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, দণ্ডপ্রাপ্তরা  কাভার্ড ভ্যানের মধ্যে ঝালাই করে ১৪৮টি সিলিন্ডার বসিয়ে এসব সিলিন্ডারে গ্যাস ভরে ভ্রাম্যমানভাবে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার বিজয়নগর ও আখাউড়া উপজেলায় বিভিন্ন স্থানে সিএনজিচালিত অটোরিকসায় এই গ্যাস বিক্রি করতো। 
গোপন সংবাদের ভিত্তিতে বিষয়টি জানতে পেরে বিজয়নগর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট মেহের নিগার শুক্রবার বিকেলে উপজেলার চম্পকনগর বাজারে অভিযান চালিয়ে ভ্রাম্যমান কাভার্ড ভ্যানটিকে আটক করে অবৈধভাবে গ্যাস বিক্রির অপরাধে শহিদুল ইসলাম এবং আবুল বাসারকে ১ মাস করে বিনাশ্রম কারাদণ্ড প্রদান করেন।
এ ব্যাপারে ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালাকারি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট মেহের নিগার বলেন, বাংলাদেশ গ্যাস আইন,২০১০ অনুযায়ী কাভার্ড ভ্যানে অবৈধভাবে সিলিন্ডার গ্যাস রাখা এবং বিক্রির দায়ে দুই ব্যক্তিকে ১ মাস করে কারাদণ্ড প্রদান করা হয়েছে। তিনি বলেন, গ্যাসভর্তি ১৪৮ সিলিন্ডারসহ ওই কাভার্ড ভ্যানটি জব্দ করে বাখরাবাদ গ্যাস ফিল্ড কর্তৃপক্ষের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। তিনি বলেন, ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযান অব্যাহত থাকবে।