রাজনীতি

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার ১১ ছাত্রলীগ নেতার অষ্টম মৃত্যুবার্ষিকী কাল

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ কাল ৪ ফেব্রুয়ারি সোমবার ব্রাহ্মণবাড়িয়ার জন্য শোকাবহ দিন। সড়ক দূর্ঘটনায় নিহত ১১ ছাত্রলীগ নেতাসহ ১২জনের ষষ্ঠ মৃত্যু বার্ষিকী। দিবসটি উপলক্ষে ব্যাপক কর্মসূচী গ্রহণ করেছে জেলা ছাত্রলীগ।

কর্মসূচীর মধ্যে রয়েছে কাল সোমবার বেলা ১১টায় স্থানীয় বঙ্গবন্ধু স্কয়ারে ১২ শহীদ ছাত্রনেতার আত্মার মাগফেরাত কামনায় মিলাদ মাহফিল ও আলোচনা সভা। এতে প্রধান অতিথি থাকবেন ব্রাহ্মণবাড়িয়ার অভাবনীয় উন্নয়নের রূপকার, বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য ও জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি র.আ.ম উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরী এমপি।

উল্লেখ্য ২০১১ সালের ৪ ফেব্রুয়ারি বিকেলে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর আসনের উপ-নির্বাচনে বিজয়ী আওয়ামীলীগ নেতা র.আ.ম. উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরী এম.পির সফর সঙ্গী হয়ে গোপালগঞ্জের টুঙ্গীপাড়া জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সমাধিসৌধ জিয়ারত শেষে ঢাকায় ফেরার পথে ফরিদপুর জেলার ভাঙ্গা উপজেলার সলিলদিয়ায় মর্মান্তিক সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত হন ১১ ছাত্রলীগ নেতাসহ ব্রাহ্মণবাড়িয়ার ১২ সন্তান।

এরা হলেন সাবেক কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ নেতা মেহেদী আলম শান্ত-(৩১), ব্রাহ্মণবাড়িয়া সরকারী কলেজের সাবেক এজিএস আরিফুল ইসলাম বাবু-(৩০), জেলা ছাত্রলীগ নেতা শওকত হোসেন লিয়েন-(২৮), মোর্শেদ আলম-(২৯), শাহজাহান রহমতুল্লাহ রুমেল-(২৮), অ্যাডভোকেট জিয়াউল আমিন রিয়াদ-(২৯), শেখ রায়হান উদ্দিন-(২৮), হাফেজ আব্দুল্লাহ মাসুদ তানভীর-(২৯), মোঃ ইমরানুর রেজা ইমরান-(২৮), নূরুল আসিফ চৌধুরী (২৮) ও মিজানুর রহমান-(৩৫)। পরদিন ঢাকায় চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান মোঃ আলমগীর-(২৮)। সড়ক দূর্ঘটনায় আহত হয়ে এখনো পঙ্গুত্ব বরন করছেন জেলা ছাত্রলীগ নেতা জাহিদ হোসেন পাভেল।

১২ ছাত্র-নেতার স্মৃতিকে ধরে রাখার জন্য শহরের কেন্দ্রস্থল টি.এ.রোডের মনুমেন্টের পাশে (মঠের গোড়ায়) ৩০ লাখ টাকা ব্যয়ে নির্মান করা হয় একটি স্মৃতি সৌধ।