শিক্ষা

নার্সঃ সবার জন্য স্বাস্থ্য অর্জনে সোচ্চার- ফারজানা হোসেন আইভী

নার্স হচ্ছেন একটি হাসপাতাল এর মেরুদণ্ড, নার্স হচ্ছেন একটি হাসপাতাল এর হৃৎস্পন্দন। আলহামদুলিল্লাহ সত্যিই আমি ভাগ্যবতী এতো মহৎ পেশায় নিজেকে গড়ে নেয়া জীবনের মূল লক্ষ্য হিসেবে স্থির করেছি। 

গত ৫ই মে নার্সিং ইন্সটিটিউট ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় আন্তর্জাতিক মিডওয়াইফারি দিবস ও আন্তর্জাতিক নার্সেস দিবস উদযাপন এর পাশাপাশি ২০১৮-২০১৯শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থীদের ক্লিনিক্যাল প্র‍্যাক্টিস এর জন্য অনুপ্রেরণা ও অনুমোদন স্বরুপ ক্যাপ পড়ানো হয়েছে।

শত ব্যস্ততার মাঝেও তাদের মুল্যবান সময় দিয়ে আমাদের প্রতি গভীর স্নেহ -ভালোবাসা দেখিয়ে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা প্রশাসক # হায়াত-উদ-দৌল্লাহ স্যার । ধন্যবাদ স্যার আপনাকে আজকের এতো সুন্দর অনুপ্রেরণা মূলক আপনার মূল্যবান বক্তব্য দেয়ার জন্য। 
তাছাড়া বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন ব্রাহ্মণবাড়িয়া মেডিক্যাল কলেজ এন্ড হাসপাতালের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান # ডাঃ আবু সাঈদ স্যার। আমাদের এতো স্নেহ করার জন্য ধন্যবাদ স্যার আপনাকে। উপস্থিত ছিলেন ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা সিভিল সার্জন ডাঃ মোঃ শাহ আলম স্যার। ইনশাল্লাহ এর পরের বার স্যারের গান শুনবোই। উপস্থিত ছিলেন- ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক # ডাঃ শওকত হোসেন স্যার। আপনার বক্তব্য শিখনীয় ছিল ও স্যার আপনার হাসি থাকবে আমাদের মুখে সব সময়। উপস্থিত ছিলেন সদর হাসপাতালের নার্সেস সেবা তত্ত্বাবধায়ক # রুবি দত্ত ম্যাম। আমি আপনার সহযোগিতা কামনা করছি। 

যার কথা না বললে হবেই না- নার্সিং ইন্সটিটিউট ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সকলের প্রাণপ্রিয় # ইন্সট্রাক্টর ইনচার্জ সালাহউদ্দিন মাধবর স্যার। আমাদের সুযোগ্য ভেবে এত বড় দায়িত্ব দেয়ার জন্য ধন্যবাদ, আমরা আপনাকে নিরাশ করবো না প্রিয় স্যার। ভালোবাসি স্যার আপনাকে অনেক। 
এছাড়াও উপস্থিত সকলের মূল্যবান সময়, অনুপ্রেরণা ও উপদেশ, দোয়া সবকিছুর জন্য গভীর শ্রদ্ধা এবং কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি।
আপনাদের দেয়া দায়িত্ব আমরা যথাযথভাবে পালন করে যাবো ইনশাআল্লাহ।

শীরমণি পড়ার সাথে বুকে শপথ ও মাথায় দায়িত্ব গ্রহন করলাম একজন সৎ মানুষ ও সুদক্ষ নার্স হবো। রোগীর পাশে একজন বন্ধু হিসেবে থাকবো, তার সেবা করবো।
আগামীকাল থেকে শুরু করতে যাচ্ছি জীবনের সবচেয়ে মূল্যবান অধ্যায়। সবাই দোয়া করবেন এই পবিত্র পেশায় যেন নিজেকে সুষ্ঠভাবে নিয়োজিত রাখতে পারি, সুশিক্ষায় শিক্ষিত হতে পারি, নিজে সুস্থ থাকি এবং অন্যের সুস্থতা অর্জনে সাহায্য করতে পারি। একজন ভালো মানুষ ও সুযোগ্য নার্স হিসেবে ফ্লোরেন্স নাইটিংগেল, মাদার তেরেসা এদের মতো মহিসী নারী হয়ে যেন ইতিহাস গড়তে পারি।